তনুশ্রীর প্রশংসায় কঙ্গনা

admin

যৌন হেনস্তার বিরুদ্ধে হার্ভি ওয়াইনস্টিনকে কেন্দ্র করে হলিউডে তুমুল আলোড়ন তুলেছিল ‘হ্যাশট্যাগ মি টু’ আন্দোলন। যদিও বলিউডে এর ছিটেফোঁটাও পড়েনি। অনেকেই ধারণা করেছিলেন, বলিউডের লোকজন গা বাঁচিয়ে চলছেন। সম্প্রতি অভিনেত্রী তনুশ্রী দত্ত ধারাবাহিকভাবে যৌন হেনস্তা নিয়ে কথা তুললে সরগরম হয়ে ওঠে বি টাউন। আর এ ঘটনায় তনুশ্রীর এই সাহসী পদক্ষেপের প্রশংসা করলেন আরেক অভিনেত্রী কঙ্গনা রনৌত।
সম্প্রতি শক্তিমান অভিনেতা নানা পাটেকরের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ তুলেছেন তনুশ্রী। এ ছাড়া একই ধরনের অভিযোগ করেছেন পরিচালক বিবেক অগ্নিহোত্রী আর প্রেমাংশু রায়ের বিরুদ্ধেও। ২০০৯ সালে মুক্তি পাওয়া হর্ন ওকে প্লিজ ছবি করতে গিয়ে নানা পাটেকর তাঁকে যৌন হেনস্তা করেছেন—ভারতীয় টিভি চ্যানেল নিউজ এইটিনকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তনুশ্রী এ অভিযোগ করেন। আরেক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছেন, ২০০৫ সালে চকলেট ছবির শুটিংয়ের সময় পরিচালক বিবেক অগ্নিহোত্রী তাঁকে পোশাক খুলে সিনেমার অন্য দুই শিল্পী সুনীল শেঠি আর ইরফান খানের সামনে নাচার জন্য বলেছিলেন। পরে সুনীল শেঠি ও ইরফানের প্রতিবাদের মুখে সে যাত্রায় হেনস্তার হাত থেকে রেহাই পান তনুশ্রী।
এই অভিযোগ তোলায় পাল্টাপাল্টি কথা উঠছে বলিউডে। কেউ দাঁড়াচ্ছেন তনুশ্রীর পাশে তো কেউ নানা পাটেকরের পাশে। তনুশ্রী দত্তের পাশে দাঁড়ানো তারকাদের কাতারে আছেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া, সোনম কাপুর, ফারহান আখতার, স্বরা ভাস্কর। এবার তনুশ্রীর এই সাহসী পদক্ষেপের প্রশংসা করলেন অভিনেত্রী কঙ্গনা রনৌতও। কঙ্গনা রনৌত বলেন, ‘আমি কোনো রায় দেওয়ার জন্য এ কথা বলছি না। কারণ রায় দেওয়ার আমি কেউ নই, এটা আমার ইচ্ছাও নয়। কিন্তু যৌন হেনস্তার বিরুদ্ধে আমি তাঁর সাহসী উচ্চারণের প্রশংসা করি। এটা তাঁর এবং ভুক্তভোগীদের মৌলিক অধিকার, যা তাঁদের সেই খারাপ অভিজ্ঞতা নিয়ে কথা বলার সুযোগ তৈরি করে দেয়। এ ধরনের কথাবার্তা হওয়া সমাজের জন্য খুবই ভালো লক্ষণ। এটা সবার মধ্যে প্রচুর সচেতনতা জাগাবে।’
অবশ্য যাঁদের বিরুদ্ধে তনুশ্রীর এই অভিযোগ, তাঁরা প্রত্যেকেই অস্বীকার করেছেন। ধারণা করা হচ্ছে, বিষয়টি আদালত পর্যন্তও গড়াতে পারে। এমরান হাশমির বিপরীতে ২০০৫ সালে আশিক বানায়া আপনে ছবিতে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে বেশ পরিচিত পান তনুশ্রী দত্ত। এরপর কয়েক বছর বলিউডে কাজ করে হঠাৎ হারিয়ে যান এই অভিনেত্রী। কিছুদিন আগেই আবার মিডিয়ায় দেখা যায় তাঁকে। বলিউডে ফিরে এসে নিজের তিক্ত অভিজ্ঞতা সবাইকে জানাতে শুরু করেন তিনি।
সূত্র : ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস, প্রথম আলো : ১ অক্টোবর ২০১৮

Share us
Next Post

Bohu Borne Ek Draupadi staged

Where the epic ends, Nityapurana begins. Writer and director Masum Reza’s depiction of the aftermath of the epic Mahabharata is an impeccable creation. Last evening, the audience witnessed the 75th exhibition of Desh Natok’s timeless production– Nityapurana at Bangladesh Shilpakala Academy. A house-full audience blissfully watched a variation of the […]
Bohu Borne Ek Draupadi